শনিবার, ২৪ Jul ২০২১, ০৩:০৫ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
রৌমারীতে এরশাদ হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে বিক্ষোভ করোনা সংকটে নড়াইলে বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের অক্সিজেন সিলিন্ডার সেবা শুরু ৩০ মিনিটেই হ্যাটট্রিক ব্রাজিলের রিচার্লিসনের, হারে শুরু আর্জেন্টিনার করোনার তৃতীয় ঢেউ মোকাবেলায় ডোনেট ফর ভূরুঙ্গামারীর জরুরী প্রস্ততিমূলক সভা সরিষাবাড়ী যমুনা সার কারখানার পরিবেশ দূষণ থেকে বাঁচতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন সাংবাদিক মিলনের মহানুভবতায় বাচলো ৬টি পাখির ছানার প্রাণ। রোগীদের সেবা দিয়ে ঈদ আনন্দ উপভোগ করছেন মনিরামপুর স্বেচ্ছাসেবীরা হরিপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে আপন দুই বোনের মৃত্যু রৌমারীতে ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুনি কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার

আত্রাইয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ চেষ্টা, গণধোলাই দিয়ে অভিযুক্তদের পুলিশে দিলো এলাকাবাসী

Avatar
Saiful Islam
  • আপডেট সময় : ১ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬২৭ বার পঠিত

মোঃ সেলিম সরদার,নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি: নওগাঁ জেলার অদূর আত্রাই উপজেলার মিরাপুর গ্রামের এক (মেয়ের নাম ঠিকানা গোপন রাখা হলো) কিশোরীকে অপহরণ করে ধর্ষণ চেষ্টা চালায় ৪ বন্ধু। তারা ৪ বন্ধু মিলে এই ঘটনাটি ঘটিয়েছে গত ২৭।১২।২০২০ইং রোজ রবিবার দিন। মেয়েটিকে বাড়ীতে এক পেয়ে ঐ যুবক গুলো কৌশলে অপহরণ করে নিয়ে যায় নদীর তীরে।

সেখানে ৪ বন্ধু মিলে ধর্ষণ চেষ্টা চালানোর সময় মেয়েটির আত্মচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে তারা মেয়েটিকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।
লোকজন এসে উদ্ধার করে মেয়েটিকে সে সময় পরিবারের হাতে তুলে দেয়।দীর্ঘ দিন ঘটনাটি ধামাচাপা থাকলে ও বর্তমানে আসামীদের উৎপাত ও ব্লাকমেইল বেড়ে যাওয়ায় মেয়েটির বাবা রতন আর মাহবুবকে ডেকে বুঝানোর চেষ্টা করে। তারা এসে মেয়েটির বাবার সাথে খারাপ আচারণ করতে শুরু করে এতে পরিস্থিতি উত্তেজনা মূলক হলে এলাকাবাসী তাদের গণধোলাই দিয়ে থানা পুলিশকে খবর দিয়ে উনাদের হাতে তুলে দেন।

আসামীরা হলেন (১)মোঃ রতন মন্ডল (২১) পিতা মোস্তাফা মন্ডল, রতন মন্ডলের স্থায়ী ঠিকানা জয়পুরহাট জেলা।(২)মোঃ মাববুব আলম (২৩) পিতা রহিম আলী। (৩)মোঃ রাসেল (২০) পিতা আব্দুর রাজ্জাক। (৪)শ্রীঃ সুমন (২৩) শ্রীঃ সুভাষ উভয়ের সাং মিরাপুর,ইউনিয়ন শাহগোলা থানা আত্রাই, জেলা নওগাঁ।তবে ৪ আসামীর মধ্যে রাসেল ও সুভাষ ঘোষ পালাতক রয়েছে।এদের মধ্যে আসামী মাহবুব আলম বিবাহিত ও বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

আত্রাই থানার অফিসার্স ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ মুঠোফোনে আরও জানান,মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে অপহরণ ও ধর্ষণ চেষ্টা আইনে মামলা দায়ের করেন,এই মামলায় আসামী মোট ৪ জন।আমরা দুজনকে মামলা রেকর্ড করে চালায় করে দিয়েছি আদালতে।বাঁকি দুজনকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।সেই সাথে তিনি আরও বলেন, গত কয়েক মাসে শাহগোলা ইউনিয়নেরই ৫/৭ টি ধর্ষণ মামলা, গণধর্ষণ মামলা রেকর্ড করেছি।এই ইউনিয়নে ধর্ষণ ঘটনাটি দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।তবে আমরা আইনের শাসন দ্বারা কঠোর হস্তে তা দমন করার চেষ্টা চলিয়ে যাচ্ছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এ্রই রকম আরো সংবাদ