শনিবার, ২৪ Jul ২০২১, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
রৌমারীতে এরশাদ হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে বিক্ষোভ করোনা সংকটে নড়াইলে বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের অক্সিজেন সিলিন্ডার সেবা শুরু ৩০ মিনিটেই হ্যাটট্রিক ব্রাজিলের রিচার্লিসনের, হারে শুরু আর্জেন্টিনার করোনার তৃতীয় ঢেউ মোকাবেলায় ডোনেট ফর ভূরুঙ্গামারীর জরুরী প্রস্ততিমূলক সভা সরিষাবাড়ী যমুনা সার কারখানার পরিবেশ দূষণ থেকে বাঁচতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন সাংবাদিক মিলনের মহানুভবতায় বাচলো ৬টি পাখির ছানার প্রাণ। রোগীদের সেবা দিয়ে ঈদ আনন্দ উপভোগ করছেন মনিরামপুর স্বেচ্ছাসেবীরা হরিপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে আপন দুই বোনের মৃত্যু রৌমারীতে ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুনি কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার

কুড়িগ্রামে বৃষ্টি ও বন্যায় সবজি চাষীদের ব্যাপক ক্ষতি কৃষকদের মাথায় হাত।

a2zbarta com
a2zbarta com
  • আপডেট সময় : ৯ জুলাই, ২০২১
  • ৫ বার পঠিত

কুড়িগ্রামে বৃষ্টি ও বন্যায় সবজি চাষীদের ব্যাপক ক্ষতি কৃষকদের মাথায় হাত।
আতাউর রহমান বিপ্লব, কুড়িগ্রাম।
কুড়িগ্রামে গত কয়েকদিনের বৃষ্টি ও মাঝারি বন্যায় ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন এখানকার সবজি চাষীরা। প্রতিবছরের হিসেব অনুযায়ী এবার দেরিতে অবিরাম বৃষ্টি আর বন্যায় তাদের এ অবস্থা। প্রায় ৮০ভাগ ফসল কৃষকরা ঘরে তুললেও জুনের শেষে বৃষ্টিতে জমে থাকা পানিতে আটকে পড়ে সবজির গোড়া। ফলে বাড়তি লাভ করার স্বপ্ন তাদের ধুলিস্যাত হয়ে গেছে। টানা বৃষ্টিতে পাটখেত নিমজ্জিত হলে আগাম তা কেটে নিলেও সবজি খেতে তা সম্ভব হচ্ছেনা। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপপরিচালক মো. মঞ্জুরুল হক জানান, বন্যায় ক্ষতির কথা ভেবে জেলায় প্রায় ১শ হেক্টর পাট আগাম কাটা হয়েছে। সদর উপজেলার ধরলা নদী তীরবর্তী পৌরসভা, হালোখানা, ভোগডাঙ্গা ও পাঁছগাছী ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রামে কৃষকরা পাট কাটেন।এসব এলাকার কৃষকদের পটল,ঝিঙে,চিচিঙা,করলা,শশা,কাকরোলসহ লাল শাক,ধনেপাতা,পুঁই শাক,মুলা শাক পানিতে আংশিক নিমজ্জিত হয়েছে।সোমবার সকালে সদরের পাঁচগাছী ইউনিয়নের শুলকুর বাজার এলাকার বেশ কিছু সবজী চাষী তাদের নিমজ্জ্বিত খেত থেকে সবজি উত্তোলন করছিলেন।উত্তর নওয়াবশ, দক্ষিণ নওয়াবশ,কদমতলা ও ছড়ার পাড়ের কৃষক জলিল,কাশেম, খলিল ও নুরুজ্জামান জানান,  গত বছর জুনের প্রথম সপ্তাহে বন্যার পানি এসে সব খেতের ফসল নষ্ট করে দিয়েছে।
এবার বন্যা না হলেও বৃষ্টির জলাবদ্ধতায় নীচু জমির খেতগুলো তলিয়ে গেছে। এতে শেষের দিকের ফসলগুলো প্রায় নষ্ট হওয়ার পথে। শুলকুর বাজারের কৃষক জব্বার আলী জানান, ৩০শতক জমির পটল খেত তলিয়ে গেছে। বেশ কিছু পটল আগে তুলে বিক্রি করে ভালো দাম পেয়েছি। গতবার বন্যার কারনে ভীষন ক্ষতি হয়েছে। এবার লাভ বেশি পাওয়া যেত।কিন্তু এ পানির কারনে একটু ক্ষতি হলো। ছড়ারপাড় গ্রামের কৃষাণি ছালেহা বেগম জানান, নীচু এলাকা হওয়ায় এখানে পাটখেতগুলো তলিয়ে যাচ্ছিল। এখনো হামার পাট পুরাট হয় নাই তাতো কাটি নিনো। এতে হামরা ৫/৭ কেজি কম পাট পামো হয়তো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এ্রই রকম আরো সংবাদ