শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৩৭ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নড়াইলে প্রবাসী ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে চৌহালীতে ব্লক গ্রান্ট কো-অর্ডিনেশন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রৌমারীতে বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের বিক্ষোভ সমাবেশ রৌমারীতে বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসন সুন্দরগঞ্জে ছাত্রলীগ/যুবলীগের বাঁধারমুখে জাতীয় পার্টির বিক্ষোভ সমাবেশ পন্ড অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে উলিপুরে সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার না করায় ব্যবসায়ীদের স্বতঃস্ফূর্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা মাদারগজ ব্র্যাকের উদ্যোগে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

চলনবিলের পানিতে ভাসমান অবস্থায় অটোরিকশা চালক ইমনের লাশ উদ্ধার।

সোহেল রানা জয়
  • আপডেট সময় : ২১ আগস্ট, ২০২১
  • ৩২৩ বার পঠিত

চলনবিলের পানিতে ভাসমান অবস্থায় অটোরিকশা চালক ইমনের লাশ উদ্ধার।

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
নিখোঁজের দু’দিন পর পাবনার চাটমোহরের হান্ডিয়ালে চলনবিলের পানিতে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেল সিএনজি অটোরিকশা চালক ইমন হাসানের লাশ। শুক্রবার (২০ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে ভাসমান অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত ইমন হাসান (১৬) চাটমোহর উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের মাঝগ্রামের জাকির হোসেনের ছেলে। পরিবারের দাবি, তার সিএনজি অটোরিকশা ছিনতাইয়ের জন্য ইমনকে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার সকালে চাটমোহর-মান্নাননগর সড়কের হান্ডিয়াল দরাপপুর ব্রিজের পাশে বিলের পানিতে একজনের লাশ ভাসতে দেখে থানায় খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠনো হয়েছে।

ইমন হাসানের বাবা জাকির হোসেন বলেন, গত বুধবার (১৮ আগস্ট) সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। রাত দশটার দিকে হান্ডিয়াল মান্নাননগর থেকে চারজন যাত্রী ভাড়া নিয়ে চাটমোহরের উদ্দশ্যে রওনা হয়। তারপর থেকে ইমনের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। তার মুঠোফোনও বন্ধ ছিল। অনেক খোঁজাখুঁজি করে সন্ধান না পেয়ে চাটমোহর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়। লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে দেখি লাশটি আমার ছেলে ইমনের।

এ বিষয়ে চাটমোহর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার সজিব শাহরীন বলেন, উদ্ধারকৃত লাশ নিখোঁজ সিএনজি অটোরিকশা চালব ইমনের। তার পরিবারের লোকজন লাশটি শনাক্ত করেছেন। দড়ি দিয়ে তার হাত-পা বাঁধা ছিল। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে গেছে দূর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় মামলা দায়ের ও অপরাধী সনাক্তের প্রস্তুতি চলছে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম বলেন, অটোরিকশা চালক ইমনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে এটি একটি হত্যাকান্ড। তদন্ত প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও অপরাধী দের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.


এ্রই রকম আরো সংবাদ