শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:১৬ অপরাহ্ন

পুলিশের এস আই ইফতেখার কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়া হয়েছে।

Abu Zafor
  • আপডেট সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২১৩ বার পঠিত

স্বামীর লিঙ্গ কর্তনের অভিযোগে আটক  স্ত্রী কে আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টারঃ
রাজশাহীর বোয়ালিয়া মডেল থানার মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই হিসেবে কর্মরত ইফতেখার আল আমিন এর লিঙ্গ কর্তন করে দেন তার স্ত্রী রূপসী দেওয়ান। ঘটনার পর পরই পুলিশ খবর পেয়ে  ইফতেখার আল আমিনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যার দিকে তার অস্ত্রোপচার করা হয়।

হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক আহমেদ উল্লাহ জানান, রোগীর অবস্থা ভালো নয়। তাকে এয়ার এম্বুলেন্সে ঢাকায় নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

এর পর অবস্থার অবনতি হলে  গুরুতর আহত পুলিশ কর্মকর্তা ইফতেখার আল আমিনকে বৃহস্পতিবার রাত ২ টার দিকে  রাজধানী ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়।
ঘটনার পরই অভিযুক্তকে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়। পরে এ ঘটনায় থানায় দায়ের করা মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।
ইফতেখার  আল আমিন  ২০১০ সালে উপপরিদর্শক (এসআই) পদে চাকরিতে যোগ দেন। তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলায়। আর তার স্ত্রীর বাবার বাড়ি মুন্সিগঞ্জ জেলায়। তারা রাজশাহী নগরীর সাগরপাড়া এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করেন।
পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার( ৯ ডিসেম্বর ২০২১খৃীঃ)  বিকেল সোয়া চারটার দিকে বাসায় ঘুমিয়ে ছিলেন ইফতেখার আল আমিন। এসময় স্ত্রী রুপসী চাকু দিয়ে ইফতেখারের পুরুষাঙ্গ কেটে খাটের নিচে লুকিয়ে রাখেন।  প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ইফতেখার আল আমিনের স্ত্রী স্বামীর লিঙ্গ কর্তনের কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন। পুরুষাঙ্গের খণ্ড অংশও বের করে দিয়েছেন। একাধিক নারীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলায় ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি এ কাজ করেছেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।
পুলিশ আরো জানায়, ওই এসআইয়ের সাথে তার স্ত্রীর দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলছিল। তারই জেরে এ ঘটনাটি ঘটিয়েছেন।
বৃহস্পতিবার রাতে ভুক্তভোগী পুলিশ কর্মকর্তার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিকুর রহমান নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় ইফতেখার আল আমিনের পুরুষাঙ্গ কর্তন ও তাকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে তার স্ত্রী রুপসী দেওয়ানের বিরুদ্ধে একটি  মামলা দায়ের করেন।

আরএমপির বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ ঘটনার রাতে  জানান, রূপসী দেওয়ান অভিযোগ স্বীকার করেছেন। বতর্মানে তিনি পুলিশী হেফাজতে রয়েছেন। রূপসী দেওয়ানের অভিযোগ, একাধিক নারীর সঙ্গে তার স্বামীর অনৈতিক সম্পর্ক থাকায় তিনি এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।

এই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রুপসী দেওয়ানকে গতকাল শুক্রবার সকালে আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ-কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস সাংবাদিকদের এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

One response to “পুলিশের এস আই ইফতেখার কে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়া হয়েছে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published.


এ্রই রকম আরো সংবাদ