শনিবার, ২৪ Jul ২০২১, ০৪:৩৪ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
রৌমারীতে এরশাদ হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে বিক্ষোভ করোনা সংকটে নড়াইলে বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের অক্সিজেন সিলিন্ডার সেবা শুরু ৩০ মিনিটেই হ্যাটট্রিক ব্রাজিলের রিচার্লিসনের, হারে শুরু আর্জেন্টিনার করোনার তৃতীয় ঢেউ মোকাবেলায় ডোনেট ফর ভূরুঙ্গামারীর জরুরী প্রস্ততিমূলক সভা সরিষাবাড়ী যমুনা সার কারখানার পরিবেশ দূষণ থেকে বাঁচতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন সাংবাদিক মিলনের মহানুভবতায় বাচলো ৬টি পাখির ছানার প্রাণ। রোগীদের সেবা দিয়ে ঈদ আনন্দ উপভোগ করছেন মনিরামপুর স্বেচ্ছাসেবীরা হরিপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে আপন দুই বোনের মৃত্যু রৌমারীতে ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুনি কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে ৫শ দুস্থ্য পরিবার পেল ঈদ উপহার

বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি তানভীরের বিদেশ যাত্রার উপর নিষেধাজ্ঞা ; জিজ্ঞাসাবাদে ডাকবে পুলিশ।

a2zbarta com
a2zbarta com
  • আপডেট সময় : ২৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬৩ বার পঠিত

তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় আসামী বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি তানভীরের বিদেশ যাত্রার উপর নিষেধাজ্ঞা।
স্টাফ রিপোর্টার ঃ
রাজধানীর গুলশানে তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার আসামি বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের বিদেশ যাত্রার ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে পুলিশের আবেদন মঞ্জুর করেছেন ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালত। পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী জানিয়েছেন, যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে অনুমতি চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি অভিবাসন কর্তৃপক্ষকেও সায়েম সোবহান যাতে দেশ ছাড়তে না পারেন, সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করা হয়েছে।
সোমবার সন্ধ্যার পর গুলশান-২-এর একটি ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান (মুনিয়া) নামে তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই তরুণীর বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন। আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহানকে মামলায় আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনার পর সায়েম সোবহান ও ওই তরুণীর বেশ কিছু ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এবং বিচারের দাবীতে সোচ্চার হয় ওঠে।
ঘটনার বিবরন ঃ
ঢাকায় পুলিশ বলছে, গুলশান এলাকায় একজন তরুণীর মৃত্যুর ঘটনায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার একটি অভিযোগ নথিভূক্ত করা হয়েছে।
মৃত তরুণীর বোন গুলশান থানায় মঙ্গলবার ভোররাতে আত্মহত্যায় প্ররোচনার একটি মামলা দায়ের করেছেন, যেখানে সায়েম সোবহান আনভীরকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।
মি. আনভীর বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী গোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
অভিযোগ প্রসঙ্গে বক্তব্যের জন্য আমাদের  মিডিয়া কর্মী মি. আনভীর এবং বসুন্ধরা গ্রুপের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছে, কিন্তু তাদের তরফ থেকে কোন মন্তব্য পাওয়া যায়নি।
এ ঘটনা নিয়ে বাংলাদেশের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে।
মৃত তরুণীটি উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের একজন ছাত্রী ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। ঢাকার অভিজাত এলাকা গুলশানের একটি অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়া নিয়ে কয়েকমাস ধরে তিনি একাই থাকছিলেন।
গুলশান অঞ্চলের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার নাজমুল হাসান ফিরোজ বলেন, সোমবার সন্ধ্যায় ওই তরুণীর বোন কুমিল্লা থেকে ঢাকায় আসেন। সন্ধ্যায় গুলশানের অ্যাপার্টমেন্টটিতে ঢুকে তিনি বোনের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন।
পরে পুলিশ ওই বাসায় গিয়ে দেখতে পায় যে, মৃতদেহটি সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলছে।
রাতেই মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
প্রাথমিকভাবে পুলিশ এটিকে আত্মহত্যা বলে ধারণা করছে।
রাতে মেয়েটির বড়বোন গুলশান থানায় একটি মামলা দায়ের করেন, তাতে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।
পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার মি. হাসান বলছেন, মামলার এজাহারে অভিযোগ করা হয়েছে যে ওই তরুণীর সাথে মি. আনভীরের দুই বছর যাবৎ সম্পর্ক ছিল।
বিষয়টি নিয়ে বিবিসি নিউজ বাংলা সহ বেশ কজন সংবাদকর্মী ও এটুজেডবার্তার তরফ থেকেও  বসুন্ধরা গ্রুপের প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া উপদেষ্টার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়, কিন্তু তাদের কেউ ফোন ধরেননি বলে প্রতিবেদক নিশ্চিত করেছেন ।
মি. আনভীরের ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনটিও সকাল থেকে বন্ধ পাওয়া গেছে ।
তবে তার ব্যক্তিগত কর্মকর্তা গোলাম মোহাম্মদের সঙ্গে প্রতিবেদকের কথা হয়েছে।
মি. মোহাম্মদ বলেন, “হি ইজ  আনঅ্যাভেইলেবল।”
তিনি জানান যে তার বিষয়ে ওঠা অভিযোগ সম্পর্কে মন্তব্য করতে মি. আনভীরকে পাওয়া যাবে না।
এদিকে তরুণীর পরিবারের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায় , এটি আত্মহত্যার প্ররোচনা হলেও পক্ষান্তরে হত্যা। কারন তাকে এ পথ বেছে নিতে বাধ্য করা হয়েছে। পুলিশ তদন্ত ও বিচার বিভাগের প্রতি তাদের শতভাগ আস্থা আছে। কারন তার বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, দেশের স্বাধীনতা  আনতে তাদের বাবারাই  যুদ্ধ করেছে ও বুকের তাজা রক্ত দিয়ে ৩০ লাখ বাঙ্গালী শহীদ হয়েছেন।  দেশের সংবিধানে নাগড়িক অধিকার প্রতিষ্ঠায় শহীদদের রক্তের মূল্য বৃথা যাবে না। একজন  বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের অকালে জীবন যাওয়ার বিচার হবেই বলে তারা আশাবাদ ব্যাক্ত করেছেন।
এই মামলায় পুলিশ সায়েম আকবর তানভীর কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে নিবে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


এ্রই রকম আরো সংবাদ