বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৭:০০ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
মান্দায় জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন দিবস ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী জনতা দলের কিশোরগঞ্জ জেলা কমিটি গঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী জনতা দলের কিশোরগঞ্জ জেলা কমিটি গঠন রৌমারীতে উপ-নির্বাচনের মনোনয়ন পত্র জমার শেষ দিন কুড়িগ্রামের রৌমারীতে ইংলিশ ল্যাংগুয়েজ ক্লাবের ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত মান্দার সাবাই বাজার কেন্দ্রীয় মন্দির পরিদর্শন করেন “আশরাফুল ইসলাম” ও “এস এম জীবন” রাজিবপুরের ব্রহ্মপুত্রের অব্যাহত ভাঙ্গনের হুমকিতে মসজিদ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এডিআর ভাবনার এখনি সময় – ওসি আশিকুর রহমান পিপিএম। “একতা প্রেসক্লাব বেনাপোল” এর সন্মানিত দুই উপদেষ্টার সাথে সদস্যদের মত বিনিময় নাটোরের নলডাঙ্গায় জাতীয় কন্যা শিশু দিবসে র‌্যালী আলোচনাসভা

সাঁথিয়ায় স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের সন্দেহে অটো চালক খুন,৭২ ঘন্টার মধ্যেই অপরাধী শনাক্ত ও গ্রেফতার।

Admin
  • আপডেট সময় : ১৬ জুন, ২০২১
  • ১৬৮ বার পঠিত

সাঁথিয়ায় স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের সন্দেহে অটো চালক খুন,৭২ ঘন্টার মধ্যেই অপরাধী শনাক্ত ও গ্রেফতার।


‘গ্রেপ্তার হওয়া শীলা খাতুনের বাড়িতে যাতায়াত ছিল উপজেলার গোসাইপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সেলিম মিয়ার। এ থেকে শীলার সঙ্গে সেলিমের সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ করতে শুরু করেন তাঁর স্বামী আল-আমীন।” প্রাথমিক ভাবে ছিনতাইয়ের ঘটনা মনে হলেও এটা ছিলো পরিকল্পিত হত্যা।।

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
পাবনার সাঁথিয়ায় অটোরিকশাচালক সেলিম মিয়াকে (২৮) হত্যা ও তাঁর গাড়ি ছিনতাইয়ের রহস্য উদ্‌ঘাটনের করেছে পুলিশ। পুলিশ তদন্তে নিশ্চিত হয় , একজনের স্ত্রীর সঙ্গে সেলিমের সম্পর্কের সন্দেহ থেকে এ খুনের পরিকল্পনা হয়। আর্থিকভাবে লাভবান হতে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটি বিক্রি করেন খুনের ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিরা।ছিনতাইয়ের ঘটনায় অটোরিকশা চালক খুন প্রাথমিক ধারনায় তেমন মনে হলেও এটি পরিকল্পিত হত্যা।

মঙ্গলবার (১৫ জুন ২০২১) সকালে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং করে এ কথা বলেন পাবনার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম। তিনি বলেন, খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচজন জিজ্ঞাসাবাদে এসব কথা স্বীকার করেছে ওই পাঁচজন। তারা হলেন সাঁথিয়া উপজেলার ছোন্দহ গ্রামের রাসেল হোসেন (২২) এবং বহাল বাড়িয়া পূর্বপাড়া গ্রামের রানা শেখ (৩১), শীলা খাতুন (২১), হোসেন আলী (১৮) ও দেলোয়ার হোসেন (৩৮)। পুলিশ বলছে, হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী আল-আমীন (৩০) শীলা খাতুনের স্বামী এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে। আল-আমীন কে গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান বলেন, নিহত সেলিম মিয়া ও গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা পূর্বপরিচিত। গ্রেপ্তার হওয়া শীলা খাতুনের বাড়িতে যাতায়াত ছিল উপজেলার গোসাইপাড়া গ্রামের বাসিন্দা সেলিম মিয়ার। এ থেকে শীলার সঙ্গে সেলিমের সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ করতে শুরু করেন তাঁর স্বামী আল-আমীন। একপর্যায়ে শীলা স্বামীকে বলেন, সেলিম তাঁকে বিভিন্ন সময়ে উত্যক্ত করেছেন। এ কথা জানার পর গ্রেপ্তার হওয়া অন্যদের নিয়ে সেলিমকে খুনের পরিকল্পনা করেন তিনি। পরিকল্পনা অনুযায়ী, তাঁরা ৯ জুন বিকেলে সেলিম মিয়ার অটোরিকশাটি বেড়ানোর কথা বলে ভাড়া নেন। উপজেলার ক্ষেতুপাড়া ইউনিয়নের কালুকাটা গ্রামের একটি নির্জন মাঠে যান। সেখানে সেলিম মিয়াসহ সবাই মিলে গাঁজা সেবন করেন। নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়লে রাত নয়টার দিকে সেলিমকে পিটিয়ে ও পায়ের রগ কেটে হত্যা করেন গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিরা। পরে তাঁরা সেলিমের অটোরিকশাটি ৩১ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি করে সেই টাকা ভাগাভাগি করে নেন সবাই।

১০ জুন সকালে কালুকাটা গ্রামের ওই মাঠ থেকে সেলিমের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তাঁর বাবা তোফাজ্জল হোসেন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন।

পুলিশ বলছে, ঘটনার পর পুলিশ সুপারের দিক নির্দেশনায় পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মাসুদ আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বেড়া সার্কেল) জিল্লুর রহমান ও সাঁথিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলামকে নিয়ে চৌকস একটি দল গঠন করা হয়। পুলিশ সুপারের নির্দেশনা অনুযায়ী দলটির সদস্যরা তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রথমে ঢাকার ধামরাই থেকে রাসেল হোসেন ও রানা শেখকে আটক করে। পরে তাঁদের দুইজনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অন্যদের গ্রেফতার করে পুলিশ । তাঁরা পাবনার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে খুনের ঘটনার বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান। বিপিএম বলেন, হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী আল-আমীন। তিনি হত্যার ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়ে আছেন এমন তথ্যে নিশ্চিত হয়ে আমাদের অনুসন্ধানে পুরো বিষয়টি সামনে চলে আসে । আল আমিন কে গ্রেপ্তারে আমাদের টিম কাজ করছে ও পুলিশ অভিযান চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.


এ্রই রকম আরো সংবাদ