শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নড়াইলে প্রবাসী ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে চৌহালীতে ব্লক গ্রান্ট কো-অর্ডিনেশন কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রৌমারীতে বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের বিক্ষোভ সমাবেশ রৌমারীতে বাংলাদেশের সাম্যবাদী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন জেলা প্রশাসন সুন্দরগঞ্জে ছাত্রলীগ/যুবলীগের বাঁধারমুখে জাতীয় পার্টির বিক্ষোভ সমাবেশ পন্ড অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ সুন্দরগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে উলিপুরে সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার না করায় ব্যবসায়ীদের স্বতঃস্ফূর্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা মাদারগজ ব্র্যাকের উদ্যোগে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

২০ মাসে ভারতের রিজার্ভ সর্বনিম্ন

ডেস্ক নিউজ
  • আপডেট সময় : ২৩ জুলাই, ২০২২
  • ২৫ বার পঠিত

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমতে শুরু করেছে। শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের পর এবার ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমতে শুরু করেছে। ডলারের বিপরীতে ভারতীয় মুদ্রা রুপির মান ৮০ নিচে নেমে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক হস্তক্ষেপ বাড়িয়েছে। এতে ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২০ মাসেরও বেশি সময়ের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমেছে।শনিবার (২৩ জুলাই) ব্লুমবার্গের প্রকাশিত প্রতিবেদন সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) প্রকাশিত রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার তথ্য অনুসারে, ১৫ জুলাই শেষ হওয়া সপ্তাহে ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ ৭ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার কমে ৫৭২ দশমিক ৭ ‍বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। যা ২০২০ সালের ৬ নভেম্বরের পর থেকে সর্বনিম্ন।কারণ জুলাইয়ের প্রথম দুই সপ্তাহে ভারতীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক ডলারের দাম স্থিতিশীল রাখতে তাদের রিজার্ভ থেকে ১৫ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার বাজারে ছেড়েছে।এর আগে ২০২১ সালের ৩ সেপ্টেম্বর ভারতের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ ৬৪২ দশমিক ৪৫ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছিল।

ডলারের বিপরীতে ভারতীয় রুপির মান ক্রমেই নিম্নমুখী। এ প্রতিবেদন লেখার সময় এক ডলারের দাম ছিল ৭৯ দশমিক ৮৫ রুপি।বৈদেশিক রিজার্ভ কমে যাওয়ার খরবটি এমন সময়ে আসে যখন রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়ার গভর্নর শক্তিকান্ত দাস ভারতীয় মুদ্রার মান আরও কমে যাওয়ার বিষয়ে বাজার আশঙ্কা প্রশমিত করার জন্য একটি শক্তিশালী পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানান।

তিনি বলেন, ভারতের কাছে পর্যাপ্ত বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রয়েছে এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাজারে চলমান অস্থিরতা নিয়ন্ত্রণে হস্তক্ষেপ করবে।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ক্রমবর্ধমান সুদের হার এবং ঝুঁকিমুক্ত মনোভাবের পাশাপাশি অভ্যন্তরীণ তহবিল বহিঃপ্রবাহের মধ্যে ভারতীয় রুপির এ বছর দরপতন হয়েছে ৭ শতাংশ। ফলে মূল্যস্ফীতি, বাহ্যিক ঘাটতি এবং কোম্পানিগুলোর মুনাফার ওপর প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.


এ্রই রকম আরো সংবাদ