রৌমারীতে টাইলস মিস্ত্রি এরশাদ আলী হত্যাকান্ডে জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও মানবন্ধন করেছে এলাকাবাসী। শুক্রবার সকালে উপজেলার যাদুরচর ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকা খেওয়ারচর এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করেন এলাকাবাসী। খেওয়ারচর প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকা থেকে একটি বিক্ষোভ-মিছিল বের হয়ে খেওয়ার বাজারসহ আশপাশের এলাকা প্রদক্ষিণ শেষে খেওয়ারচর সড়কে এক মানবন্ধনে মিলিত হন।

ঘন্টাব্যাপি চলা এ মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, নিহত এরশাদ আলীর বাবা সুরুজ্জামাল মিয়া, যাদুরচর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরিজল হক, ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি আকতার হোসেন, সাবেক ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম, শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলাম, কৃষক ফরমান আলী প্রমুখ।

মানবন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, এরশাদ আলী হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ভিন্নখাতে নিতে শুরু থেকেই স্থানীয় একটি চক্র ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এ ঘটনায় একাধিক ব্যক্তি জড়িত থাকা সত্বেও মামলার বাদীকে একটি চক্র প্রভাবিত করে এজাহারে শুধুমাত্র শিহাব নামে একজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। ঘটনার এক মাস অতিবাহিত হলেও দোষিদের গ্রেপ্তার করতে না পারায় পুলিশের কঠোর সমালোচনা করেন বক্তারা। বিষয়টি সরেজমিন তদন্ত করে প্রকৃত দোষিদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনার জোর দাবি জানান তারা।

প্রসঙ্গত, গত ২০জুন (রোববার) সন্ধ্যা ৭টার দিকে পূর্বশত্রুতার জের ধরে এরশাদ আলী নামের ওই যুবকের গলায় ধারালো ছুড়ি চালিয়ে হত্যা করে একই এলাকার শিহাব ও অজ্ঞাত দুর্বত্তরা। এ সময় এরশাদ আলীর বন্ধু মাসুদ মিয়া এগিয়ে গেলে তাকেও এলোপাথারী কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় মাসুদকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন রৌমারী হাসপাতালের চিকিৎসকরা। এ ঘটনায় নিহত এরশাদ আলীর বাবা সুরুজ্জামাল মিয়া বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।#

copy….দ্বীপদেশ ডেস্ক :